বাংলা একাডেমি বইমেলা ২০১৬ : আসছে অরপি আহমেদ এর ”রুমাল ভালোবাসা”

August 13, 2015 7:23 PMViews: 126

শামছুল আলম রাজন: বাংলা একাডেমি আয়োজিত ২০১৬ সালের বইমেলায় প্রকাশিত হতে যাচ্ছে জনপ্রিয় লেখক ও সাংবাদিক অরপি আহমেদ এর উপন্যাস ”রুমাল ভালোবাসা”। দেশ সেরা প্রকাশনা সংস্থা অনন্যা বইটি বের করছে। আর বইটির প্রচ্ছদ এঁকেছেন দেশবরণ্য অংকনশিল্পী ধ্রুব এষ। এটি অরপি আহমেদ এর দশম প্রকাশনা।

প্রকাশিতব্য উপন্যাস ”রুমাল ভালবাসা” স¤পর্কে লেখক অরপি আহমেদ বলেন, ষাটের দশক থেকে প্রায় আশির দশকের মাঝামাঝি সময় বাংলাদেশের চলচ্চিত্রকে স্বর্ণযুগ হিসাবে উল্লেখ করা হয়। সেই সময় আমাদের সমাজে ছিল একে অপরের প্রতি নিটোল ভালবাসা, শ্রদ্ধাবোধ, নম্রতা শিষ্টাচারীতা। বাঙালিরা কাঁধে কাঁদ মিলিয়ে কি পূজা পার্বন কি ঈদ সব উৎসবে আনন্দে সময় কাটাত। সেই সময় বাংলাদেশের চলচ্চিত্র তৈরি হত স¤পূর্ণ সামাজিক প্রেক্ষাপট আর নিটোল প্রেম নিয়ে। নিল আকাশের নিচে, রংবাজ, দি রেইন, সুজনসখী, নয়নমনি ইত্যাদি নানা ছবি তৈরি হয়েছিল যা আজো আমাদের মনে দাগ কেটে আছে। কিন্তু বাংলাদেশের সেই স্বর্ণযুগ আজ শুধু স্মৃতির মধ্যেই রয়ে গেছে। সমাজ থেকে হারিয়ে গেছে নিটোল ভালবাসা, শ্রদ্ধাবোধ, নম্রতা শিষ্টাচারীতা। ছড়িয়ে পড়ছে নানা অস্থিরতা ধর্মীয় উন্মাদনা। দিনদাহাড়ে হত্যা করা হচ্ছে মুক্তচিন্তা আর মুক্তবুদ্ধির মানুষকে। দিনে দিনে আতংক ছড়িয়ে দেয়া হচ্ছে সমাজের সর্বস্তরে।

তিনি বলেন, রুমাল ভালবাসা উপন্যাসটি একটি স¤পুর্ণ নিটোল প্রেমের কল্পকাহিনি। এই উপন্যাসের পাঁচটি নারি চরত্রিকে ”ফেমাস ফাইভ” হিসাবে চিত্রায়ন করে সমাজের সবচাইতে উচ্চ শ্রেনী থেকে গ্রামীন পটভুমীতে নিয়ে আসার চেষ্টা করা হয়েছে। পুরো উপন্যাস জুড়েই রয়েছে প্রেম ভালবাসা।

08132015_16_ORPI_AHMED_RUMAL_VALOBASHA

রুমাল ভালবাসা উপন্যাস স¤পর্কে লেখক অরপি আহমেদ আরো বলেন, এক সময়ে বাংলাদেশের সমাজে রুমালের প্রচলন ছিল বেশ জনপ্রিয়। রচিত হত রুমাল সাহিত্য। রুমালের উপর নানা ছন্দে লিখা হত ভালবাসার নানা কথা। করা হত রুমাল আদান প্রদান। রুমাল ভালবাসা উপন্যাসে গ্রামের দরীদ্র সাধারন এক শিল্পী পরিবারের সাথে উচ্চবিত্ত সমাজের পাঁচটি মেয়ের পরিচয়, সেই থেকে প্রেম রুমাল দেয়া নেয়া সবকিছুতেই আমাদের হারিয়ে যাওয়া সমাজ, হারিয়ে যাওয়া একে অপরের প্রতি ভালবাসা, শ্রদ্ধাবোধ সবকিছুই ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করা হয়েছে মাত্র। তবে সত্যিকার অর্থে কতটুকু আনা হয়েছে তা শুধু পাঠকরাই বলতে পারবেন।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের বইমেলায় অরপি আহমেদের দুটি বই ”আগুনমুখী!” এবং ”দেবদূত!” প্রকাশিত হয় এবং ব্যাপক পাঠক জনপ্রিয়তা পায়। আগুনমুখী! অরপি আহমেদ এর দ্বিতীয় কাব্যগ্রন্থ। ২০১০ সালে অরপি আহমেদ এর প্রথম কাব্যগ্রন্থ ”তোমার লাল টুকটুক” প্রকাশিত হয়েছিল। বাংলাপ্রকাশ থেকে প্রকাশিত অরপি আহমেদ এর প্রথম কাব্যগ্রন্থ ”তোমার লাল টুকটুক” এর প্রচ্ছদও একেঁছিলেন শিল্পী ধ্রুব এষ। ”তোমার লাল টুকটুক” কাব্যগ্রন্থটির স¤পাদনার দায়িত্বে ছিলেন শিশু সাহিত্যিক হুমায়ুন কবির ঢালী।

এছাড়া সাই-ফাই ফেইথ এবং ¯িপরিচ্যুয়াল ফ্যান্টাসি থ্রীলার ”দেবদূত” অরপি আহমেদ এর নবম প্রকাশনা এবং ”হিরো” সিরিজের তৃতীয় উপন্যাস। ২০১৩ সালে বাংলা একাডেমি আয়োজিত গ্রন্থমেলায় ”হিরো” সিরিজের প্রথম প্রকাশনা ”লাকি মাই লাভ” প্রকাশিত হয় এবং ২০১৪ সালে প্রকাশিত হয় ”হিরো”।

২০০৯ সালে একুশের বইমেলায় মুক্তিযুদ্ধের উপর ভিত্তি করে লেখা অরপি আহমেদ এর প্রথম উপন্যাস “বাবার হাতের প্রথম ছোঁয়া” প্রকাশিত হয় এবং এরই ধারাবাহিকতায় ২০১০ সালে কাব্যগ্রন্থ “তোমার লাল টুকটুক”, ২০১১ সালে রম্য উপন্যাস “দরবারে হাওয়া”, ২০১২ সালে স¤পূর্ণ প্রেমের উপন্যাস “আলোমায়া”, ২০১৩ সালে প্রেমের উপন্যাস ”লাকি মাই লাভ”, ২০১৪ সালে মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক দ্বিতীয় উপন্যাস ”একাত্তরের যোদ্ধা : অপারেশন পিএনএস লাকসাম”এবং ফেইথ ¯িপরিচ্যুয়াল সাইফাই ফ্যান্টাসি থ্রীলার ”হিরো!” প্রকাশিত হয়।

এছাড়া লেখকের একাদশ প্রকাশনার কাজও প্রায় শেষ পর্যায়ে রয়েছে বলে এ প্রতিবেদককে জানান তিনি। সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী বইমেলায় মোট দুটি বই পাচ্ছে তার বই প্রেমীরা। বাংলা অনলাইন মিডিয়ার পথিকৃতদের মধ্যে অন্যতম অরপি আহমেদ সাবেক প্রাদেশিক পরিষদ সদস্য, জাতীয় সংসদের প্রাক্তন সদস্য, গেরিলা ট্রেনিংপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা মরহুম আলহাজ মৌলভী জালাল উদ্দীন আহমেদের সন্তান।

বাংলাদেশের সংবিধানকে দেশের সর্বোচ্চ আইনে পরিনত করতে যে কয়জন এমপি সংবিধানের প্র¯তাবনায় স্বাক্ষর করেন অরপি আহমেদ এর পিতা মরহুম জালাল আহমেদ তাদের মধ্যে অন্যতম।

অরপি আহমেদ ১৯৮৪ সালে এসএসসি, ১৯৮৬ সালে এইচএসসি এবং ১৯৯৪ সালে ম্যানেজম্যান্টে মাষ্টার্স ডিগ্রী অর্জন করেন। ২০০১ সালে অরপি আহমেদ যুক্তরাষ্ট্রের মিনিসোটা রাজ্যের সেন্ট থমাস বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সফটওয়ার ইঞ্জিনিয়ারিং এ মাষ্টার্স অব সফটওয়ার সিষ্টেম (এমএসএস) ডিগ্রী অর্জন করেন।

১৯৮৮ সাল থেকে অরপি আহমেদ সাংবাদিকতায়ও জড়িত হয়ে পড়েন। দেশে ও প্রবাসের বিভিন্ন পত্রিকায় তার লেখা সংবাদ অত্যন্ত গুরুতে¦র সাথে প্রকাশিত হয়। এছাড়াও তিনি নিয়মিত কলাম লেখেন। সাংবাদিকতা সাহিত্য চর্চা কমিউনিটি সেবা এবং কর্মক্ষেত্রে বিশেষ আবদানের জন্য অরপি আহমেদ ক্লোজআপ ওয়ান এওয়ার্ড, ফোবানা এওয়ার্ড, গুড সিটিজেন অ্যাওয়ার্ড সহ নানা অ্যাওয়ার্ড লাভ করেন। অরপি আহমেদ বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে তথ্য ও প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ হিসাবে কর্মরত আছেন।

Leave a Reply


*